জাতীয়

সকালের সময় 'কোভিড-১৯' আপডেট
# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ 297,083 182,875 3,983
বিশ্ব 23,728,063 16,193,743 814,657

লড়াই-সংগ্রামে ৪৩ বছরে বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন

 

লড়াই-সংগ্রাম ও ঐতিহ্যে ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দ ঘুণে ধরা সমাজ পরিবর্তনে দীপ্ত পথচলা অঙ্গীকার করেছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনটি দুই দিন ব্যাপি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আয়োজন করেছে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন আজ ২৮ আগস্ট, বুধবার সকাল ৮টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি হাফিজ আদনান রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক খান আসাদুজ্জামান মাসুমের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় কমিটি এবং সংগঠনের ঢাকা মহানগরের সভাপতি হাবীব ইমন ও সাধারণ সম্পাদক রাসেল ইসলাম সুজনের নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে সকল গণআন্দোলনের বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন। এরপর শহীদ মিনারে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সভাপতি হাফিজ আদনান রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক খান আসাদুজ্জামান মাসুম। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের প্রেসিডিয়াম সদস্য তছলিম সাখাওয়াত, শিশির চক্রবর্তী, ত্রিদিব সাহা, সহ-সাধারণ সম্পাদক শরীফ-উল আনোয়ার সজ্জন, কোষাধ্যক্ষ শিমুল খান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ম. ইব্রাহিম, কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা মহানগরের সভাপতি হাবীব ইমন, সাধারণ সম্পাদক রাসেল ইসলাম সুজন, সহ-সাধারণ সম্পাদক শাখারভ হোসেন সেবক, আজিমউদ্দিন প্রমুখ।

দ্বিতীয় দিন ৩০ আগস্ট শুক্রবার বিকাল ৪টায় রাজধানীর মণি সিংহ সড়ক থেকে বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের সাবেক ও বর্তমান নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য র‌্যালি প্রদক্ষিণ হবে। এছাড়া পুরানা পল্টনের মুক্তি ভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে পুনর্মিলনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান  অনুষ্ঠিত হবে। এসব আয়োজনে আয়োজনে শামিল হবেন, যারা যুব ইউনিয়নের দর্শনকে চর্চা করেছেন যুগ যুগ ধরে। উপস্থিত থাকবেন প্রতিষ্ঠাকাল থেকে জড়িত প্রবীণ থেকে বর্তমান সময়ের তরুণরাও।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর শিল্পীরা এতে অংশগ্রহণ করবে।

অনুষ্ঠানে শেষে সংগঠনের ঢাকা মহানগর প্রযোজিত ‘মুক্তিযুদ্ধে তারুণ্য’ শীর্ষক তথ্যচিত্র প্রদর্শিত হবে।

বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের ৪৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সারাদেশের যুবকদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে সংগঠনের সভাপতি হাফিজ আদনান রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক খান আসাদুজ্জামান মাসুম এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন,  ৪৩ বছরের নানা প্রতিবন্ধকতা, নানা সংগ্রাম-লড়াই, বহু চড়াই-উতরাই পেরিয়ে পথচলায় নিজস্ব বৃত্তের মধ্যেই বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখেনি; একদিকে যেমন গণমানুষের পাশে  থেকে যুব সমাজের পথ নির্মাণ ও নির্দেশ করেছে, অন্যদিকে মানুষের জীবনবোধ ও অধিকার আদায়ের রাজনৈতিক সংগ্রামেও নেতৃত্ব দিয়েছে। দেশের প্রতিটি দূর্যোগ দুর্বিপাকে মানুষের জন্য সহযোগিতার অনন্য দৃষ্টান্ত রেখেছে যুব ইউনিয়ন। সেই সাথে আন্তজার্তিক সংগ্রামে, সাম্রাজ্যবাদ, আধিপত্যবাদ ও দেশে দেশে মানুষের মুক্তির লড়াইয়ে যুব ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ অংশগ্রহণ অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য যুব আন্দোলন, যুব মানসিকতা, নতুন কাজের ধারা, মুক্তিযুদ্ধের অভিজ্ঞতায় অসীম তারুণ্য নিয়ে ১৯৭৬ সালের ২৮ আগস্ট ঢাকার গোপীবাগে একটি বাসায় ১৩-১৪ জন যুবক মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, তার নাম ছিল গণতান্ত্রিক যুব ইউনিয়ন। ১৯৭৭ সালে প্রথম সম্মেলনে এর নাম হয় ‘বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন’।

১৯৮৮ সালের ভয়াবহ বন্যায় বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে খাবার স্যালাইন তৈরি কাজ শুরু হলো। দলে দলে যুবকরা এতে স্বেচ্ছাশ্রম দিয়েছে। যুব আন্দোলন শক্তিশালী হয়ে উঠে। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন, ’৯০-ও গণঅভ্যুত্থান, সা¤্রাজ্যবাদবিরোধী আন্দোলন, সাম্প্রদায়িকতা-জঙ্গিবাদবিরোধী আন্দোলন-যুব কনভেনশন, মুক্তিযুদ্ধবিরোধীদের বিরুদ্ধে আন্দোলন ও গণজাগরণ ম  সৃষ্টিসহ বহুবিধ কাজে বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন সাহসী-উদ্যোগী ভূমিকা রেখেছে। বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন প্রথম জাতীয় সম্পদ রক্ষায় ঢাকা-সিলেট পদযাত্রা করেছে। দীর্ঘসময় ধরে মুক্তিযুদ্ধের অনন্য দলিল ও দুর্লভ চিত্র নিয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনী করেছে। চাকরিতে পেঅর্ডার বাতিল যুব ইউনিয়নের একটি সফলতা। তাছাড়া পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে সারাদেশে ঘুষছাড়া চাকরি চাই দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। বর্তমানে ডেঙ্গু প্রতিরোধে গণসচেতনতা সৃষ্টি ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

 

মন্তব্য