পাঁচমিশালি

৩.৮ মিলিয়ন বছর আগের মাথার খুলির সন্ধান

 

প্রায় ৩.৮ মিলিয়ন বছর আগের কথা। সেই সময় এই পৃথিবীতে বাস করত মানুষের পূর্বপুরুষ। এমনটি জানা গেছে, আবিষ্কার হওয়া বহু বছরের পুরনো একটি মাথার খুলি দিয়ে। যে খুলিটির সঙ্গে মানব প্রজাতির মিল পাওয়া গেছে। এই খুলিটি একটি নদীর ব-দ্বীপে বালির মধ্যে কবর দেওয়া হয়েছিল, যা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে শক্ত পাথর হয়ে যায়। বালিপাথরের মধ্যে এই খুলির জীবাশ্ম আবিষ্কার করেন বিজ্ঞানীরা। ২০১৬ সালে এই খুলিটি আবিষ্কার করে বেশ উচ্ছ্বসিত হন তারা।

ইথিওপিয়ার ওয়ারানসো-মিল্লেতে একটি বহু প্রাচীন নদী এবং হ্রদের কাছে খননকাজ চলার সময় সেখানে এই জীবাশ্ম খুঁজে পেয়েছিলেন নৃবিজ্ঞানীরা। সেই সঙ্গে মিলেছিল বহু প্রাচীন হাড় এবং খুলি।

এ সময় তারা জানান, এই খুলিটি আমাদের এখনও অবধি খুঁজে পাওয়া সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য নমুনাগুলোর মধ্যে একটি।

ক্লেভল্যান্ডের যাদুঘরের প্রাকৃতিক ইতিহাসের নৃতাত্ত্বিক এবং মানুষের বিবর্তনবাদ নিয়ে অধ্যয়নরত আন্তর্জাতিক দলের সদস্য জোহানেস হেইল-সেলেসি নামের একজন এ তথ্য প্রদান করেন।

হেইল-সেলেসি এবং তার সহকর্মীরা নেচার জার্নালে জানিয়েছেন, এই খুলিটি, সম্ভবত অস্ট্রেলোপিথেকাস অ্যানামেন্সিস নামে পরিচিত প্রজাতির এক পুরুষের। অন্যান্য প্রাচীন হাড়ের সঙ্গে তুলনা করা হলে, এই মাথার খুলিটি পরিবর্তিত হয়ে ধীরে ধীরে আধুনিক মানুষের মাথার খুলিতে পরিণত হয়েছে বলে মনে করছেন নৃতাত্ত্বিকরা। এই ভাবেই নৃতাত্ত্বিকরা মানবসত্তার মাথার খুলির বিবর্তনের মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়কে দেখছেন।

মানব বিবর্তনবাদ নিয়ে গবেষণায় যুক্ত সেন্ট লুইসের ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটির একজন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডেভিড স্ট্রেইট বলেন, ‘এই নমুনাটি মানব বিবর্তনের প্রথম দিকের অন্যতম প্রতীকী নমুনা।’

আবিষ্কার হওয়া এই খুলি থেকে বোঝা যায় আদিম এবং মানবিক উভয় বৈশিষ্ট্যের মিশ্রণ ছিল এরা। এই প্রজাতি লম্বা এবং শক্ত হাত থাকলেও সেই হাত না ব্যবহার করে শুধু দু’পায়েই হাঁটতো। এমনকি তারা সক্ষম পর্বতারোহী ছিল বলেও বোঝা যাচ্ছে।

মন্তব্য