শিক্ষা

জাবি ভিসিকে আন্দোলনকারীদের তিরস্কার

 

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.ফারজানা ইসলামকে ফের কালো পতাকা প্রর্দশনের পাশাপাশি তিরস্কার জ্ঞাপনের কর্মসূচি পালন করেছে আন্দোলনকারী শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। বুধবার বেলা একটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এ কর্মসূচিতে আন্দোলনকারীরা উপার্যকে সাত দিনের মধ্যে পদত্যাগের যে অ্যাল্টিমেটাম দিয়েছেন তার মধ্যে পদত্যাগের আহ্বান জানান।

কর্মসূচিতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদের সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম অনিক। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন,‘ দুজন শিক্ষার্থী নিহত হবার পর শিক্ষার্থীরা যখন নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন নামেন। পরে বিশ^বিদ্যালয় বাদী হয়ে ৫৪ জন শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা দেয়। উপাচার্যই ১২ জন নারী শিক্ষার্থীকে রাতের বেলা পুলিশের হাতে তুলে  দেন। ২০১৫ সালের ১৬ এপ্রিল, পহেলা বৈশাখের পরদিন উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের এক ছাত্রী, ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের কয়েক জন নেতার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনলেও প্রশাসন তার সুষ্ঠু বিচার না করে ঐ শিক্ষার্থীকে লাঞ্চনা করে।’

তিনি আরো বলেন,‘পরিসংখ্যান বিভাগের ৩৬-ব্যাচের শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর ক্যাম্পাসে ভাংচুর ও ধ্বংসযজ্ঞের তদন্তে ১৬ ফেব্রæয়ারি, ২০১৩ সালে যে কমিটি গঠন হয়েছিল তার তদন্ত কাজ উপাচার্য দায়িত্ব গ্রহণের পর বন্ধ করে দেন। এছাড়াও কোম্পনির শিডিউল ছিনতাই করার পর প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দায়ের করলেও তার কোন তদন্ত বা বিচার হয়নি।’

 এছাড়াও তিনি বলেন,‘ গত ৮ ও ৯ আগস্ট কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সঙ্গে বৈঠক নিয়ে উপাচার্য মিথ্যাচার করেন। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে উপাচার্য নিজে মধ্যস্থতা করে প্রকল্পের ১ কোটির বেশি টাকা ঈদ সালামি হিসেবে ছাত্রলীগ নেতাদের মধ্যে ভাগ- ভাটোয়ারা করে দিয়েছেন।’

দর্শন বিভাগের অধ্যাপক ড.মোহাম্মদ কামরুল আহসান বলেন,‘প্রশাসনিক দায়িত্বের বাইরে উপার্যের কিছু  নৈতিক দায়িত্ব রয়েছে যা পালনে উপাচার্য ব্যর্থ হয়েছেন। একজন সুস্থ মস্তিষ্কের ব্যক্তি হিসেবে উপার্যের উচিত তার বিরুদ্ধে উঠা দুর্নীতির অভিযোগের বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা। আমরা মনে করি উপাচার্যের শুভবুদ্ধি উদয় হবে এবং সম্মান থাকতে তিনি স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করবেন।’

শিক্ষক লিয়াজু কমিটি সমন্বয়ক অধ্যাপক ড. রায়হান রাইন আন্দোলনের পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করে বলেন,‘আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) দুপুর ১২ টায় দুর্নীতিবাজ উপার্যের পদত্যাগের দাবিতে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক থেকে বিক্ষোভ মিছিল করা হবে। সেই সাথে অবাঞ্চিত ভিসিকে কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।’

মন্তব্য