অর্থ-বাণিজ্য

সকালের সময় 'কোভিড-১৯' আপডেট
# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ 60391 12804 811
বিশ্ব 6,714,335 3,261,276 393,408

শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক মতিঝিলে ব্যাংকিং বুথ চালু করেছে

 

রাজধানীর বাণিজ্যিক এলাকা মতিঝিলের ডিএসই এনেক্স বিল্ডিং-এ ০১ অক্টোবর ২০১৯ইং তারিখে শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের ২য় ব্যাংকিং বুথের উদ্বোধন করা হয়েছে। শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড এর পরিচালক পর্ষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্জ আক্কাচ উদ্দিন মোল্লা প্রধান অতিথি হিসেবে উক্ত ব্যাংকিং বুথের উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও জনাব এম. শহীদুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব এম. আখতার হোসেন ও জনাব ইমতিয়াজ ইউ. আহমেদ, ঢাকা মেইন শাখার ব্যবস্থাপক জনাব নাসিম সেকান্দার, মতিঝিল ফরেন এক্সচেঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক জনাব মাহমুদ হোসাইন, মতিঝিল শাখার ব্যবস্থাপক জনাব মোঃ এনামুল হক, ব্যাংকের জনসংযোগ ও ব্যাংক ফাউন্ডেশন-এর প্রধান জনাব মোঃ সামছুদ্দোহা সিমু এবং কোম্পানী সচিব জনাব মোঃ আবুল বাশার-সহ ব্যাংকের গ্রাহক, শুভানুধ্যায়ী ও ব্যবসায়ীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্যাংকের চেয়ারম্যান আলহাজ্জ আক্কাচ উদ্দিন মোল্লা বলেন, প্রতিনিয়ত শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের আমানত ও বিনিয়োগ গ্রাহক সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। মতিঝিল এবং দিলকুশা এলাকায় শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের ৩টি শাখা চালু রয়েছে কিন্তু গ্রাহকদের ক্রমবর্ধমান চাহিদার প্রেক্ষিতে আজকের এই ব্যাংকিং বুথের উদ্বোধন করা হল। টিকাটুলি থেকে শাপলা চত্ত্বর এলাকার গ্রাহকগণ এখন এই বুথ থেকে টাকা উত্তোলন এবং জমা-সহ আরো অন্যান্য ব্যাংকিং সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও জনাব এম. শহীদুল ইসলাম বলেন, দেশের অর্থনীতিকে বেগবান করা এবং অধিকহারে জনগণকে ব্যাংকিং সেবার আওতায় আনয়নের লক্ষ্যেই শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন এলাকায় গ্রাহকদের চাহিদার প্রেক্ষিতে আমরা শাখা সম্প্রসারণের পাশাপাশি ব্যাংকিং বুথ চালু করতে শুরু করেছি। আমরা ব্যাংকিং সেবা খুব সহজে এবং দ্রুত পৌঁছে দিতে চাই সমাজের সর্বস্তরের সাধারণ মানুষের দোরগোঁড়ায়। শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের এই কার্যক্রম অদূর ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে ব্যাংকের সমৃদ্ধি কামনা করে বুথ প্রাঙ্গণে পবিত্র কুরআন খতম, দুরূদ এবং দো’য়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

 

 

মন্তব্য