শিক্ষা

ঢাবি জসীম উদ্দীন হলের ১ শিক্ষার্থীর স্বর্ণপদক ও ৫ শিক্ষার্থীর মেধাবৃত্তি লাভ

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবি জসীম উদ্দীন হলের মেধাবী ১ জন শিক্ষার্থী ‘কবি জসীম উদ্দীন হল ট্রাস্ট ফান্ড স্বর্ণপদক’ ও ৫জন শিক্ষার্থী মেধাবৃত্তি লাভ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান গতকাল ২২ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হল মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে স্বর্ণপদক ও বৃত্তির চেক তুলে দেন।

একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম্স বিভাগের শিক্ষার্থী মো. সফিকুল ইসলাম স্বর্ণপদক লাভ করেছেন। মেধাবৃত্তি প্রাপ্তরা হলেন, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের শরীফুল ইসলাম, নাট্যকলা বিভাগের মো. শামীম মিয়া, আরবী বিভাগের মুহাম্মদ জাহেদুল করিম মানিক এবং ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের আবুল হাসানাত ও মো. নাছির উদ্দিন।

হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. রহমত উল্লাহ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ এবং ট্রাস্ট ফান্ডের সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীন। অনুষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু, মুক্তিযুদ্ধ ও জসীম উদ্দীনের পংক্তিমালা’ শীর্ষক স্মারক বক্তৃতা প্রদান করেন রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ ঘোষ। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কবি জসীম উদ্দীন হল অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন এবং হলের আবাসিক শিক্ষক অধ্যাপক ড. মো. মাহমুদুল ইসলাম।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, স্বচ্ছতা, সময়ানুবর্তিতা ও নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন সুস্থ চিন্তার মানুষ হয়ে সমাজের উন্নয়নে তোমাদের কাজ করতে হবে। অসাম্প্রদায়িক বাঙালী জাতীয়তাবাদে উদ্বুদ্ধ হতে হলে একজন সুস্থ চিন্তার মানুষ হতে হবে।

স্মারক বক্তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে উপাচার্য আরও বলেন, জসীম উদ্দীনকে আমরা পল্লী কবি হিসেবেই জানি, কিন্তু এই স্মারক বক্তৃতার মাধ্যমে কবি জসীম উদ্দীন এর সাথে বঙ্গবন্ধুর যে একটি সুসম্পর্ক ছিল সেটি বিশদভাবে জানা গেল। মহান মুক্তিযুদ্ধে কবি জসীম উদ্দীন তাঁর কবিতার মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধাদের যেভাবে উদ্বুদ্ধ করেছেন তা সুন্দর ভাবে বর্ননা করেছেন স্মারক বক্তা।

 

মন্তব্য