সারা বাংলা

গাইবান্ধায় দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ উদ্বোধন

গাইবান্ধার অন্যতম স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কর্মীর হাতের উদ্যোগে সোমবার যৌতুক বিরোধী প্রকল্পের আওতায় ১৫ ও ১৬তম ব্যাচের আয় বর্ধক ও দক্ষতা উন্নয়ন কর্মসূচি বিষয়ক প্রশিক্ষণ উদ্বোধন করা হয়। সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রসূন কুমার চক্রবর্তী আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন ও প্রশিক্ষণের উপকরণ বিতরণ করেন।
নারায়ণপুরস্থ নাবিক কর্মীর হাত হাসপাতালের হলরুমে সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. আব্দুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও কর্মীর হাতের ম্যানেজার মো. মাহমুদুল হক রতন এর সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কর্মীর হাতের সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর সাবু, সহ-সভাপতি আমিনুল ইসলাম খোকন, সহ-সাধারণ সম্পাদক সামিউল ইসলাম পিপলু, সহ-সভাপতি মো. মকবুলার রহমান, নির্বাহী সদস্য মো. মোস্তাফিজুর রহমান, আলমগীর কবির বাদল, রকিবুল হক চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে প্রশিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ উপকরণ হিসেবে খাতা, কলম, পেন্সিল, ইরেজার, সার্পনার ও স্কেল ইত্যাদি প্রদান করা হয়।
দাতা সংস্থা নর্থ আমেরিকান বাংলাদেশি ইসলামিক কমিউনিটি (নাবিক) ইউএসএ এর অর্থায়নে সদর উপজেলার অতি দরিদ্র পরিবারের বিবাহযোগ্য মেয়েদের যৌতুকের অভিশাপ থেকে মুক্ত হতে আয়-বর্ধক ও দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অর্থনৈতিকভাবে আত্মনির্ভরশীল হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচি বাস্তবায়িত হচ্ছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন কর্মীর হাত সম্পূর্ণ বিনামূল্যে চার মাসব্যাপী এই প্রশিক্ষণ প্রদান করছে। এ বছর যৌতুক বিরোধী প্রকল্পে সকাল ও বিকাল দুটি ব্যাচে গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন এলাকার ৪০ জন অবিবাহিত মেয়েকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আওতায় পোশাক তৈরি, সূচিকর্ম, ব্ল¬ক, বাটিক, রান্না শিক্ষা, নার্সেস এইড, প্রাথমিক স্বাস্থ্য সচেতনতা, আত্ম-সুরক্ষা ও ইভটিজিং প্রতিরোধ বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। প্রশিক্ষণ শেষে প্রত্যেক প্রশিক্ষণার্থীকে বিনামূল্যে ১টি করে পা-চালিত সেলাই মেশিন, নগদ অর্থ, সনদপত্র ইত্যাদি প্রদান করা হবে।
এই প্রকল্পের আওতায় এ পর্যন্ত ২৯৪ জনকে প্রশিক্ষণ প্রদানসহ ২৯৪টি পা-চালিত সেলাই মেশিন, সনদপত্র এবং আর্থিক সহায়তা হিসেবে নগদ ৪ লাখ ৪৮ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে।

 

মন্তব্য