নগর-মহানগর

সকালের সময় 'কোভিড-১৯' আপডেট
# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ 60391 12804 811
বিশ্ব 6,714,335 3,261,276 393,408

এ যেন ঈদের বাজার

সারাদেশ রয়েছে লকডাউন এর আওতায় একমাত্র ফার্মেসি কিংবা নিত্যপন্যের দোকান ছাড়া সব বন্ধ। রয়েছে পুলিশের নজরদারিতে। কিন্তু কোন লকডাউন বা পুলিশের নজরদারি নাই নারায়ণগঞ্জের ঢালিপাড়া বাজারে এই বাজারে আসলে মনেই হবে না যে সারা দেশ করোনার আতঙ্কে ভাগছে। তবে এটা মনে হবে যে এখানে কোন ঈদের বাজার চলছে কোন প্রকার দোকান বন্ধ নেই। প্রতিদিন হাজার হাজার লোকের জমায়েত হয় এই বাজারে। বাজার ঘুরে জানা গেছে পাশ্ববর্তী এলাকা থেকেও অনেক মানুষ এই বাজারে জমায়েত হচ্ছে। কোন মানুষ মানছেন না হোম কোয়ারেন্টাইন এমন কি বিদেশ ফেরতরাও ঘুরছে দেদারছে, এতে করে শঙ্কিত আছেন এই এলাকার কিছু স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ। তারা জানায় যদি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী জরুরি ভিত্তিতে এর ব্যবস্থা না নেয় বড় সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে নারায়ণগঞ্জ বাসীকে। 
এই অবস্থার পরিপেক্ষিতে এই এলাকার মেম্বার মো. বাতেন তালুকদার সকালের সময়কে বলেন, এই এলাকা এতোটা ঘনবসতি যে কোন মতেই জনসমাগম থামানো যাচ্ছেনা। আমি অনেকবার মাইকিং করেছি দোকানে দোকানে গিয়ে বলছি তাতেও মানছে না মানুষ, আমি একজন জনপ্রতিনিধি আমি আমি তো মানুষের গায়ে হাত তুলতে পারিনা। এটা থামাতে কিংবা সাধারণ জনগনকে সচেতন করতে একমাত্র আইনশৃঙ্খলা বাহিনীই পারবেন। অবশেষে অবস্থার দৃঢ়তা আনতে যোগাযোগ করা হয় ফতুল্লা থানার অফিসার ইনচার্জ এর সাথে ওনি ব্যস্ত থাকায় কথা বলতে এই থানার ডিউটি অফিসারের সাথে তিনি সকালের সময়কে বলেন, দেখেন আমরা কেউ পাকিস্তান থেকে আসেনি আমরা সবাই বাংলাদেশি আমার যেমন দায়িত্ব আছে নিজের দেশকে ভাল রাখার তেমন করে নিজের দেশকে ভাল রাখতে সবার দায়িত্ব রাখার প্রয়োজন। কারো একার পক্ষে এই মহামারী দূর করা সম্ভব না। সবাই একাত্ম হলেই এই মহামারী দূর করা সম্ভব। আমরা আমাদের সাধ্য মত চেষ্টা করে যাচ্ছি জনসাধারণকে সচেতন করার জন্য। সারাদিন আমাদের পুলিশ টহল দিচ্ছে এবং মাইকিং করছে। আমরা চেষ্টা করছি এবং জনগণকে ভাল রাখতে যতটুকু প্রয়োজন আরো করে যাব।

 

মন্তব্য