জাতীয়

সকালের সময় 'কোভিড-১৯' আপডেট
# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ 186894 98317 2391
বিশ্ব 11,763,959 6,758,048 541,228

পরিবেশ ‘সন্তোষজনক’ সিইসির আশা ভোটার বাড়বে

 


ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শুরুর দিকে কেন্দ্রে ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়বে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। একইসঙ্গে সকাল ৮টায় ভোট শুরুর পর থেকে তিন ঘণ্টার পরিস্থিতি নিয়েও সন্তুষ্ট তিনি।

শনিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর উত্তরার ৫ নম্বর সেক্টরের আইইএফ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নিজের ভোট দিয়ে বের হয়ে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। উত্তরার ওই কেন্দ্রটি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের অধীনে।

সিইসি বলেন, ‘ভোটাদের উপস্থিতি এখন পর্যন্ত কিছুটা কম। তবে, বেলা বাড়লে ভোটাদের উপস্থিতিও আরও বাড়বে। এ কেন্দ্রে ২৭৬ জন ভোট দিয়েছেন। তিনি ভোটের পরিবেশ শান্ত রাখতে প্রার্থীদের অনুরোধ জানান।’

ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপস্থিতি কম। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের কোনো দায় আছে কিনা? জানতে চাইলে সিইসি বলেন, ‘ইসির দায়িত্ব নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করা, কেন্দ্রে ভোটার আনার দায়িত্ব তো আমাদের না। প্রার্থীদের। তারা ভোটারদের আনবে।’

বিভিন্ন জায়গায় কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টির বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘ভোটের এমন পরিবেশ আমরা চাইনি।’

ভোট কেন্দ্র থেকে বিএনপি প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দেওয়া হচ্ছে, এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা কী? জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘কেন্দ্রে টিকে থাকার জন্য বিএনপির এজেন্টদের তো সামর্থ্য থাকতে হবে। বললো বের হয়ে যাও। আর বের হয়ে গেল, এটা হলে তো হবে না। বের হতে বললে সে বলবে আমি বের হবো না। সে প্রতিহত করবে।’

তখন তাকে প্রশ্ন করা হয়, সে কি পাল্টা মারধর করবে? জবাবে নুরুল হুদা বলেন, ‘মারধর করবে কেন? মারধর তো ভিন্ন কথা।’ এ ক্ষেত্রে তিনি দুটি নির্দেশনা দেন। বলেন, ‘প্রথমত, এমন কোথাও ঘটলে ম্যাজিস্ট্রেট ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আমাদের কড়া নির্দেশ আছে তারা এজেন্টকে ফের কেন্দ্রে ঢুকিয়ে দিয়ে আসবে। দ্বিতীয়ত, এজেন্টরা রিটার্নিং অফিসারের কাছে যাবে। ম্যাজিস্ট্রেট আছে তাদের কাছে যাবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘বললো বের হয়ে যাও, আর বের হয়ে গেল। আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ করলো না, তাহলে তো হবে না।’ প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, এজেন্টদের ধৈর্য ধরতে হবে। তারা নিয়মতান্ত্রিক প্রতিবাদ করবেন। এসব না করে বের হয়ে অভিযোগ করলেও কোনো লাভ হবে না।

ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটারদের ইতিবাচক সাড়া মিলছে জানিয়ে কেএম নূরুল হুদা বলেন, ‘ইভিএমে ভোট দিতে পেরে ভোটাররা খুশি। ভোটের পরিবেশ খুব শান্ত। আমরা এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পায়নি। সুন্দরভাবে ভোটগ্রহণ চলছে। আমরা ভোটের সার্বিক পরিস্থিতিতে সন্তুষ্ট।’

এর আগে শনিবার সকাল ৮টায় ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি), চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এবার প্রথমবারের মতো বিভক্ত ঢাকার দুই সিটিতে একযোগে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে ভোটগ্রহণ হচ্ছে। আর এটিই ইভিএমে সবচেয়ে বড় নির্বাচন।

মন্তব্য