বিশেষ খবর

সকালের সময় 'কোভিড-১৯' আপডেট
# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ 707,362 597,214 10,081
বিশ্ব 139,771,067 118,808,535 3,001,702
CTG News

নীতিগত আশু সিদ্ধান্ত জরুরী

ইংরেজি মাধ্যমের পরীক্ষা ঘিরে চরম উৎকণ্ঠা

দেশে ইংরেজি মাধ্যমে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের মাঝে চরম উৎকন্ঠা বিরাজ করছে। বিশ^ব্যাপী প্রতিযোগিতায় নিজেদের মেধা ও যোগ্যতা প্রমাণের চেষ্টায় নিবেদিত মেধাবী ও অমিত সম্ভাবনাময় শিক্ষার্থীদের মাঝে এ উৎকন্ঠার কারণ হচ্ছে তাদের বোর্ডের দেয়া সুবিধা শেষ পর্যন্ত তারা পাবে কিনা তা নিয়ে। করোনা মহামারির কারণে সারাবিশে^ ইংরেজি মাধ্যমে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা না নিয়ে তাদের শিক্ষকদের গ্রেড প্রদানের ক্ষমতা দেয়ার ঘোষণা দেয় ইউকে বোর্ড তথা ইডিক্সেল, অক্সফোর্ড এবং কেমব্রিজ কর্তৃপক্ষ। তাদের ঘোষণা অনুসারে সারাবিশে^ ফিজিক্যাল পরীক্ষা গ্রহণ স্থগিত করে আদেশ জারি হয়। সে হিসেবে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদেরও এ সুযোগের আওতায় থাকার কথা। 
কিন্তু দেশের ইংরেজি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী যারা ইডিক্সেল, অক্সফোর্ড সিলেবাস অনুসরণ করছে তারা এ সুযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত হলেও শুধুমাত্র কেমব্রিজের শিক্ষার্থীদের জন্য ফিজিক্যাল পরীক্ষা গ্রহণের তোড়-জোড় চলছে। যা নিয়ে দেশের ২০ভাগ ইংরেজি মাধ্যমে অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা পড়েছে চরম বিপাকে। সেই সাথে তাদের মাঝে নেমে এসেছে এক ধরণের হতাশা ও উৎকন্ঠা। 
এ বিষয়ে দৈনিক সকালের সময়কে একজন শিক্ষার্থী জানান, করোনার কারণে অনলাইনে চলা ক্লাসগুলো তাদের জন্য মোটেও যথেষ্ট ছিলো না। তাছাড়া এ পরীক্ষা সাধারণ কোন বিষয় নয়। বিশ^ব্যাপি শিক্ষার্থীদের মাঝে নিজেকে সেরা প্রমাণ করতে ব্যস্ত সবাই। সে ক্ষেত্রে নীতিগত কোন দুর্বলতার কারণে যদি শিক্ষার্থীরা প্রাপ্য সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয় তা মেনে নেয়া অনেকের পক্ষেই কষ্টকর হবে বলে মনে করছেন অনেক অভিভাবক। তাদের দাবি সরকারের উচিৎ কেমব্রিজ কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেয়া যে, তাদের পক্ষে এ সময়ে  শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় বসানো সম্ভব নয়। 
এ দিকে একটি বিশেষ সূত্রমতে, শিক্ষার্থীদের এ বিড়ম্বনার পেছনে কাজ করছে ক্যামব্রিয়ান স্কুল ও কলেজ কর্তৃপক্ষ। বিশ^ব্যাপি তাদের শিক্ষা বাণিজ্য থাকায় শিক্ষার্থীদের বিপাকে ফেলে অর্থ আদায়ের হীন চেষ্টা করছে তারা। 
এ দিকে তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতির কারণে যুক্তরাজ্য (ইউকে) সরকার নিজ দেশের পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পরিচালিত ব্রিটিশ কারিকুলামের উল্লিখিত সেশনের পরীক্ষাও বাতিল করার কথা। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেমন- যুক্তরাজ্য, মেক্সিকো, ফিলিপাইন, শ্লোভাকিয়া, ইকুয়েডর, ব্রাজিল, ইন্দোনেশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ বিভিন্ন দেশের সরকার পরীক্ষার অনুমতি তো দিচ্ছে না। 
আমাদের দেশের স্কলাস্টিক, একাডেমিয়া, মানারাত ইন্টারন্যাশনাল, হার্ডকোসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন ইংরেজি মিডিয়াম স্কুলের শিক্ষার্থীদের নিয়ে করা এক অনলাইন সমীক্ষায় দেখা গেছে, এদেশের ইংরেজি মিডিয়াম স্কুলের শিক্ষার্থীদের ৯০ভাগ সরাসরি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে চাই না। বিষয়টি বেশ উদ্বেগজনক হিসেবে মন্তব্য করেছেন বিশেষজ্ঞরা।
সারাবিশে^ করোনা মোকাবেলায় মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলের রাজ্য কেরালা। করোনা মোকাবেলায় অভাবনীয় সাফল্য দেখিয়ে সারাবিশে^ পরিচিত এখন ‘কেরালা মডেল’। কিন্তু সেই কেরালাও আক্রান্ত কমছে এই চিন্তা থেকে শিক্ষাঙ্গণ খুলে নতুন করে বিপদে পড়েছে। কেরালায় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেই শিক্ষার্থীদের নেয়া শুরু হয়েছিল ক্লাসে। কিন্তু স্কুল খোলার পরই দু’টি সরকারী স্কুলের শিক্ষার্থী-শিক্ষকরা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ ঘটনায় স্কুল দুটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
আমেরিকান এ্যাকাডেমি অব পেডিয়াট্রিক্সের এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, গত জুলাইয়ের ওই দু-সপ্তাহে করোনায় আক্রান্ত হয়ে কমপক্ষে ২৫ শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শিশুদের মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রবণতা কম বলে যে দাবি করা হয় বিভিন্ন সময় আমেরিকান এ্যাকাডেমি অব পেডিয়াট্রিক্সের রিপোর্ট অনুসারে তা ভুল বলে প্রমাণিত হয়।
করোনা পরিস্থিতির কারণে যুক্তরাজ্য সরকার নিজ দেশের পরীক্ষা বাতিলের এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পরিচালিত ব্রিটিশ কারিকুলামের উল্লেখিত সেশনের পরীক্ষাও বাতিল হওয়া জরুরী। 

মন্তব্য