সারা বাংলা

সকালের সময় 'কোভিড-১৯' আপডেট
# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ 707,362 597,214 10,081
বিশ্ব 139,771,067 118,808,535 3,001,702
Manarat University

নাঙ্গলকোটে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার পেরিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের মাধবপুর গ্রামের চা দোকানদার আব্দুল মন্নান মজুমদারের মেয়ে নবম শ্রেণির ছাত্রী তানিয়াকে (১৬) একই গ্রামের রবিউল হোসেন মজুমদারের ছেলে কাউসার মজুমদার তাদের মাছের প্রজেক্টের শ্যালো মেশিনঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

মামলা ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত ১২ এপ্রিল রবিবার রাত ২টার দিকে ওই ছাত্রী প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে গেলে আগে থেকে উতপেতে থাকা কাউসার ওই ছাত্রীকে মুখ চেপে ধরে তার মৎস্য প্রজেক্টের শ্যালো মেশিনঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। কিছুক্ষণ পর মেয়েটির চিৎকার শুনে তার বাবা ও মা গিয়ে তাকে বিবস্ত্র অবস্থায় দেখতে পায়। এ সময় ধর্ষক কাউসার তাদের পায়ে ধরে ক্ষমা চায়।

ধর্ষিতার বাবা হতদরিদ্র মন্নান কাওছারের পরিবারের কাছে তাদের নিয়ে যান এবং বিষয়টি খুলে বলেন। কাওছারের পরিবার বলে, বিষয়টা এমন কিছু নয়, এটা ছেলে-মেয়ের ব্যাপার। এমনটাই হতে পারে বলে তাদের তাড়িয়ে দেয়। পরে সামাজিকভাবে সমঝোতার চেষ্টা করা হয়। এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না পেয়ে গত বৃহস্পতিবার মেয়ের বাবা বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা করেন।

মেয়ের বাবা বলেন, ওই গ্রামের এলএলবি শিক্ষার্থী আহসান উল্লাহ কাওছারের পরিবার থেকে ৬৫ হাজার টাকা লেনদেন করে মামলাটি ক্লোজ করার চেষ্টা করছেন। আমি গরিব বলে কি এ দেশে বিচার পাব না? আমি তাদের কাছে বহুবার গিয়েছি বিচারের জন্য। উল্টো আমাকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বিভিন্নভাবে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। আমি অর্থমন্ত্রী লোটাস কামাল ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই ধর্ষণের বিচার দাবি করছি।

এ বিষয়ে ধর্ষিতা জানায়, কাওছার আমাকে বিভিন্ন সময় কুপস্তাব দিয়ে আসছিল। আমি রাজি না হলে আমাকে জোরপূর্বক নিয়ে ধর্ষণ করে। আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।

এ বিষয়ে জানতে সাংবাদিকরা সরেজমিন গেলে কাওছারের বড় ভাই আব্দুল কাদের ক্ষিপ্ত হয়ে গালমন্দ করেন এবং মারার জন্য এগিয়ে আসেন।

মামলার আইও মফিজুলের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ২০০০ সালের নারী শিশু নির্যাতন সংশোধনী ২০০৩ ধারায় একটি মামলা রুজ করা হয়েছে। মেয়েটির মেডিকেল টেস্ট করা হয়েছে। আমরা দ্রুত আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি।

মন্তব্য