সাহিত্য

সকালের সময় 'কোভিড-১৯' আপডেট
# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ 707,362 597,214 10,081
বিশ্ব 139,771,067 118,808,535 3,001,702
Manarat University

এই দাহকাল সহজে কাটবে না-------বাসন্তি সাহা

মাত্র তিনদিনের ব্যবধানে আমরা মিতা হক ও কবরীকে হারিয়েছি। দুজনকে খুব কাছ থেকে চিনতাম তাও না। মিতা হককে দেখেছি দূর থেকে ছায়ানটে আর কবরীকে দেখেছি টেলিভি শনের পর্দায়।
আমার প্রথম দেখা সিনেমা ‘‘মমতা’’র নায়িকা ছিলেন কবরী। তখন বিটিভিতে সিনেমাটা দেখানো হয়েছিল। তারপর আরও কত সিনেমা। এখনও মাঝে মাঝে ‘তুমি যে আমার কবিতা’ বা  ‘মনতো ছোঁয়া অথবা ‘সে যে কেনো এলো না’ সেই অভিমান দেখি মাঝে মাঝে। তাঁর এক্সপ্রেশন, সাজের পরিমিতবোধ, হাসির সরলতা পরের নায়িকারা আর কেউ পেলো না কেন বুঝতে পারি না! সেই সময়ের গান, অভিনয়, সুরের এতবড় উত্তরাধিকার পাওয়ার পরও আমরা এমন ভিখারী হয়ে গেলাম কেন কে জানে! 
আর মিতা হক। তাঁর গান আমি শুনি যখন আমার কাঁদতে ইচ্ছে করে। তাঁর গলায় তাঁর  অনুভবে আমার বেদনাগুলো যেনো ধরা দিয়েছে। মিতা হক, দেবব্রত বিশ্বাসের গানের মধ্যে দিয়ে রবীন্দ্রনাথ আমার আশ্রয় হয়ে আছেন। যখনই কোনো বেদনা আমাকে বিদীর্ণ করে আমি ছুটে যাই রবীন্দ্রনাথের কাছে মিতা হক, দেবব্রত বিশ্বাসের হাত ধরে। 
গত দু’দিন তাদের চলে যাবার সংবাদগুলো ফলো করছিলাম। কেবল প্রথম আলো’তে  তাদের চলে যাবার সংবাদের নিচের কমেন্টগুলো পড়ে তাদের চলে যাবার চেয়ে বেশি কষ্ট পেয়েছি। কতরকম মন্তব্য বিম্মিত, হতবাক আর স্তব্দ করে দিয়েছে আমাকে। মনে হচ্ছে, আমরা কোথায় যাচিছ কে তা জানে----
সেখানে  এই দুজন শিল্পী ব্যাক্তি মানুষ, তাদের অবদানের বাইরে –তাদের বিশ্বাস নিয়ে যে পরিমাণ নেতিবাচক আলোচনা চোখে পড়েছে তার বেদনা এই মৃত্যুর চেয়ে কম ভয়াবহ নয়। এমন একটা সময়, যে কোনো সময় যে কেউ চলে যেতে পারি! এই সময়ে এসেও আমরা এতোটা হিংসা লালন করি নিজের মধ্যে!
তাহলে মহামারী থেকে আমরা কী শিখলাম! অতর্কিতে আক্রান্ত হওয়ার ভয়, সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার ভয়, প্রিয়জনকে হারিয়ে ফেলার ভয় কিছুই পরিবর্তন করতে পারলো না আমাদের মনকে। এই মহামরাীর বিষাদস্মৃতি হয়তো বিদায় নেবে একদিন কিন্তু মানবিক মানুষ হারিয়ে ফেলার ক্ষতি  তার চেয়ে বেশি হবে। ভাইরাসের চেয়ে তা দ্রুত আগুণের মতো ছড়াচ্ছে।  রিক্ত হয়েও আমরা কিছু অর্জন করতে শিখলাম না। এই দাহকাল সহজে কাটবে না।

মন্তব্য