ঢাকা রবিবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০২২

বিজয়ের মাসের প্রথম প্রহরে শহীদদের স্মরণে শিখা চিরন্তনে স্বেচ্ছাসেবক লীগের শ্রদ্ধা নিবেদন


মোসা. শাহানারা খাতুন photo মোসা. শাহানারা খাতুন
প্রকাশিত: ১-১২-২০২১ দুপুর ১:৪৯

১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস। বিজয়ের মাস ডিসেম্বরের প্রথম প্রহরে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি জননেতা নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক জননেতা আফজালুর রহমান বাবু'র নেতৃত্বে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ রাত ০০ঃ০১ মিনিটে ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শিখা চিরন্তনে স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত ৩০ লক্ষ শহীদ ও দু লক্ষ মা বোনের সম্ভ্রম এবং জাতীয় চারনেতা, ১৫ আগস্টের ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনে নিহত সকল শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেন এবং সংগঠনের সভাপতি জননেতা নির্মল রঞ্জন গুহ'র অনুমতিক্রমে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জননেতা আফজালুর রহমান বাবু উপস্থিত নেতাকর্মীদের শপথ পাঠ করান।
(শপথঃ জাতির জনকের কন্যা, বাংলার গণমানুষের নেত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার বিপক্ষের শক্তিদের, জামাত শিবিরদের, বিএনপি জামাত নব্য হেফাজত দের, বাংলাদেশের রাজনীতিতে কোনভাবেই স্থান দেওয়া হবে না। ৭১'র ৩০ লক্ষ শহীদ, ২ লক্ষ মা বোনের রক্তের বিনিময়ে, ইজ্জতের বিনিময়ে, আমাদেরকে যে সোনার বাংলা উপহার দিয়েছে, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের নেতৃত্বে। এই বাংলাকে রক্ষা করার জন্য, এই  মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তিকে রক্ষা করার জন্য, আমরা অগ্নি শপথ নিচ্ছি যে, বাংলাদেশের মাটিতে সরকারি দল, বিরোধী দল, সকলেই মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি হতে হবে। যারা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে বিশ্বাস করে না, তাদের বাংলাদেশের মাটিতে রাজনীতি করার কোন অধিকার নেই। যেকোন মূল্যে বাংলার গণমানুষের নেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সোনার বাংলাদেশ, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করবোই করবো)।
জয়বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু।।

সংগঠনের সভাপতি উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন ৭১'র পরাজিত শক্তি বার বার মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার উপর আঘাত হানার চেষ্টা করে! যত ষড়যন্ত্রই হোক না কেন আজকের নতুন প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্ভাসিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অপশক্তিকে মোকাবেলা করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে উদ্ভাসিত রাখবে। মুক্তিযুদ্ধের সরকার চলমান থাকবে। আমরা চাই সরকার এবং বিরোধীদলও থাকবে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী অপশক্তিকে স্থান দিতে চাই না। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের উড্ডীয়মান চেতনাকে ধারণ করে, লালন করে নতুন প্রজন্মকে সাথে নিয়ে আমরা তাদের মোকাবেলা করবো।
সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে,  মুক্তিযুদ্ধের বিপক্ষের শক্তি সেই উন্নয়ন অগ্রগতির বিরুদ্ধে বার বার হানা দিতে চায়! যখন পদ্মাসেতুতে শেষ স্প্যানটি লাগে তখন মামুনুল হক বাবুনগরীদের গাত্রদাহ হয়! তারা কিন্তু নতুন করে ষড়যন্ত্রের বিষবাষ্প ছড়াতে চায়! তাই আসুন আমরা সকলেই ঐক্যবদ্ধ ভাবে আমাদের পূর্বসূরীরা ৩০ লক্ষ শহীদ যে আশা এবং স্বপ্ন নিয়ে সাধ নিয়ে এই বাংলাদেশ বিনির্মাণের স্বপ্ন দেখে গেছে, বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সেই স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে আমরা যেন সকলেই ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করি। তাহলেই ৩০ লক্ষ শহীদ ও ১৪ ডিসেম্বরের শহীদ বুদ্ধিজীবীরা শান্তি পাবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সিনিয়র সহ সভাপতি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু, কাজী শহিদুল্লাহ লিটন, মজিবুর রহমান স্বপন, আব্দুল আলিম বেপারী, কাজী মোয়াজ্জেম হোসেন, সৈয়দ নাসির উদ্দিন, উপদেষ্টা অধ্যাপক শহিদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোবাশ্বের চৌধুরী, ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ইসহাক মিয়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি কামরুল হাসান রিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল সায়েম, গ্রন্থণা ও প্রকাশনা সম্পাদক কেএম মনোয়ারুল ইসলাম বিপুল, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ইফতেখার উদ্দিন পলাশ, ডিজিটাল আর্কাইভ ও পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক এম এ হান্নান, প্রতিবন্ধি উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক আনোয়ার পারভেজ টিংকু, উপ দপ্তর সম্পাদক অ্যাডঃ মোঃ মনির হোসেন সহ কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগর উত্তর দক্ষিণের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী।

এমএসএম / এমএসএম