ঢাকা মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০২২

ধর্ম নিয়ে মন্তব্যের জেরে তুমুল বিতর্ক, মুখ খুললেন সাই পল্লবী


বিনোদন ডেস্ক photo বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯-৬-২০২২ দুপুর ৩:৩৬

ধর্মীয় সংঘাতের বিরুদ্ধে মন্তব্য করায় তুমুল বিতর্কের মুখে পড়েছেন ভারতের দক্ষিণী সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সাই পল্লবী। তিনি বলেছিলেন, যেকোনো ধর্মের মানুষকেই হত্যা করা সমান অপরাধ। তিনি প্রতিটা মানুষকেই সমান চোখে দেখেন।

সম্প্রতি সিনেমার প্রচারে এক সাক্ষাৎকারে অংশ নেন সাই পল্লবী। সেখানে তিনি কাশ্মীরে হিন্দু পণ্ডিত ও ভারতের অন্য অঞ্চলে মুসলমান হত্যা নিয়ে মন্তব্য করেন। পল্লবী যদিও ধর্মীয় সম্প্রীতির কথা বলেছেন, সংঘাত নয়, মিলেমিশে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন, কিন্তু সেটাকে ভালোভাবে নেয়নি ভারতের হিন্দু সমাজ।

গত কয়েকদিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় সাই পল্লবীকে তুলোধুনা করছে নেটিজেনরা। অবিরাম সমালোচনার মুখে অবশেষে ব্যাখ্যা দিতে বাধ্য হলেন সাই। সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে নিজের বক্তব্যের বিশ্লেষণ করেছেন তিনি।

সাই পল্লবী বলেন, “এই প্রথমবার আমি কিছু স্পষ্ট করার জন্য সবার সাথে যোগাযোগ করছি। মনে হচ্ছে এই প্রথমবার আমি আমার হৃদয়ের কথা বলার আগে দু’বার ভাবব, কারণ আমি উদ্বিগ্ন। আমার কথার ভুল ব্যাখ্যা হতে পারে। তাই আমাকে ক্ষমা করবেন, যদি আমি আমার চিন্তাভাবনা জানাতে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি সময় নিই।”

না থেমে সাই পল্লবী বলে গেলেন, “একটি সাম্প্রতিক সাক্ষাত্কারে, আমাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল যে, আমি বাম নাকি ডানপন্থী। তখন স্পষ্টভাবে বলেছিলাম যে, আমি বিশ্বাস করি আমি নিরপেক্ষ এবং আমাদের নিজেদের প্রথমে ভালো মানুষ হতে হবে। এবং নির্যাতিতদের যেকোনো মূল্যে রক্ষা করতে হবে।”

ধর্মের নামে কাউকে আঘাত না করতে আহ্বান জানিয়েছেন সাই পল্লবী। তার ভাষ্য, ‘অন্যের জীবনকে নিয়ন্ত্রণ করার অধিকার আমাদের কারোর নেই। একজন মেডিকেল গ্র্যাজুয়েট হিসেবে আমি বিশ্বাস করি, প্রত্যেকটা মানুষের জীবন সমান এবং গুরুত্বপূর্ণ। আশা করি, সামনে এমন দিন আসবে না, যখন একটি শিশু তার পরিচয় দিতে ভয় পাবে।’

সাই পল্লবী আরও বলেন, ‘আমার বক্তব্যকে যেভাবে ভিন্ন দিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, সেটা দেখে অবাক হয়েছি। এমনকি অনেক স্বনামধন্য ও দায়িত্বশীল ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান আমার বক্তব্যের টুকরো অংশ ছড়িয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করেছেন। তারা আমার পুরো বক্তব্যটা দেখেনি এবং আসল তাৎপর্যটা বুঝতেও পারেনি। সবার প্রতিক্রিয়া দেখে আমার বারবার নিজেকে একা মনে হচ্ছিল। এই দুঃসময়ে যারা আমার পাশে ছিলেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

এমএসএম / এমএসএম