ঢাকা রবিবার, ২২ মে, ২০২২

সঙ্গীত প্রাঙ্গণে নতুন মুখ আরিয়ান


বিনোদন ডেস্ক photo বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫-১-২০২২ দুপুর ১১:৪০
গানের জগতে নতুন করে পথচলা শুরু করেছেন আরিয়ান আহম্মেদ শান্ত নামে এই তরুণ শিল্পী। বর্তমানে তিনি অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। আপনারা হয়তো ইন্ডিয়ান বিখ্যাত গায়ক অরিজিৎ সিং এর নাম শুনেছেন। চেহারার সাথে মিল না থাকলেও কন্ঠের সাথে আরিয়ানের অনেক মিল রয়েছে বলে ভক্তরা তার নাম দিয়েছে বাংলার অরিজিৎ সিং । বর্তমানে অরিজিৎ সিং এর উসকে হি বানা, মন মাঝিরে গান কভার করে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। সেই সাথে তিনি নিজের লেখা ও সুর করা গান "তুমি নেই বলে" গেয়ে বেশ সাড়া পেয়েছেন।  বর্তমানে আরটিভি কতৃক  আয়োজিত "আরটিভি
ইয়ং স্টার" প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছিলেন আরিয়ান। কিন্তু ভাগ্যের কি নির্মম পরিহাস ! ২২ বছর থেকে মাত্র কয়েকদিন বয়স বেশি হওয়ার কারণে বিচারকগণ তাকে পরবর্তী রাউন্ডে যেতে দেয়নি। তবুও তিনি থেমে যাননি। নিয়মিত গান চর্চা করে যাচ্ছেন এই তরুণ শিল্পী। দৈনিক সকালের সময় এর এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, 
 
আমার নাম আরিয়ান শান্ত। আমি মধ্যবিত্ত ঘরের একজন সন্তান,আপনাদের মাঝে আমার সংগীত জীবন নিয়ে কিছু কথা বলতে চাই। আমি যখন দশম শ্রেণীতে পড়াশুনা করতাম তখন একটি ছোট খাটো মোবাইলফোন ব্যবহার করতাম।তবে কেনো যে গান শোনার প্রতি এতটাই ইচ্ছে হয়েছিলো বুঝতে পারিনি। তবে একটি মেমোরীকার্ড কিনেছিলাম তাও আবার ২জিবি ! ২জিবি মেমোরী কার্ডে কিছু গান লোড করে নেই তারপর গান শুনে নিজের মধ্যে সেই গান গুলো ধারণ করতে থাকি। তবে আমি যখন গান শুনতাম তখন আমারও ইচ্ছে হতো গান গাওয়ার তাই গুণগুণ করে আমি ও গান করতাম। অতঃপর এতটাই ভালোবাসা বেড়ে যায় গানের প্রতি যে স্কুলে ক্লাসের ফাকে যখন টিফিন টাইমের সময় হতো আমি গুণগুণ করে গান করতাম।আমি কিন্তু সেই দশম শ্রেণীর কথা বলতেছি,বন্ধুরা আমার গুণগুণ করে গাওয়া গান শুনে সবাই আমাকে ক্লাস রুমে গান শুনানোর অনুরোধ করে.আমি যখন ২/১ টি গান শুনাই সবাই এতটা প্রশংসা করেছে যে আমি গান নিয়েই কিছু একটা করার সিদ্ধান্ত নিই 
তার কিছু দিন পর চলে যাই "চাঁদপুর শিল্পকলা একাডেমীতে"। ভর্তি হয়ে গোলাম-২০১৬সালের জানুয়ারি মাস থেকে ক্লাসিক্যাল গান শিখা শুরু করে দেই" ওস্তাদ (মৃণাল সরকারের)কাছে ২০১৭থেকে২০১৯পর্যন্ত চাঁদপুরের(মৃত্তিকা মিউজিক একাডেমি) নামে একটি ব্যান্ডে  ব্যান্ড এবং আধুনিক  সংগীত নিয়ে কাজ করি- লিড গিটারিস্ট ও ব্যান্ড লিডার (বাবু) স্যারের সাথে। মোট ৩বছর সংগীত সাধনা  করি। তারপর হঠাৎ আমার জিবনটা সংগীত থেকে অনেকটাই বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলো! কারণ আমার বাবা আমার জন্য একটি চাকুরি জোগাড় করে ছিলো সেই সূত্রে আমাকে ঢাকা চলে যেতে হয়েছিল। আমি ১বছরের ও বেশী সময় চাকুরীরত অবস্থায় ছিলাম। তবে তখন আমার সময়টা ততটা ভলো যাচ্ছিলোনা।  কারণ আমার মন সবসময় আমার কাছে কিছু প্রশ্নের উত্তর খুঁজতো!প্রশ্নটা ছিলো এমন যে-আমার কি আর কখনো গানের স্বপ্নটা পূরণ হবেনা??আমি কি কখনো লাখো কোটি মানুষের মাঝে দাড়িয়ে গান করতে পারবোনা? এমন সব প্রশ্ন নিজের কাছে উত্তর খুঁজে বেড়াতো!তবে ২০২১সালের ফেব্রুয়ারী মাসে আমি চাঁদপুরে নিজ বাসায় চলে আসি ঢাকা থেকে। কারণ তখন করোনা পরিস্থতির ভয়াবহ শুরু হয়েছিলো!তবে আমি চাঁদপুরে আসার পর সংগীত নিয়ে জোড়ালো ভাবে কাজ করা শুরু করে দেই, আমি এবং আমার আরো ২ বন্ধু মিলে একটি ব্যান্ড প্রতিষ্ঠা করি-ব্যান্ডের নাম ছিলো "স্বাধীন বাংলা ব্যান্ড" তবে আমাদের প্রত্যকের বর্তমান ঠিকানা/বাসার দুরুত্ব বেশি হওয়াতে আমারা একত্রিত ভাবে ব্যান্ডটি নিয়ে বেশিদূর এগোতে পারিনি! অতঃপর আমি নিজে গান লেখা এবং সুর করা শুরু করে দেই। আমি থেমে থাকিনি একটি মূহুর্তের জন্য। একটি মৌলিক গান রেকর্ড করেছিলাম গানটির নাম ছিলো "তুমি নেই বলে" গানটি দর্শকের এতটাই পছন্দের গান ছিলো-যে আমার সংগীত জীবনে এটি একটি ভালোবাসাময় প্রাপ্তি ছিলো। তারপর বিভিন্ন বড়মাপের ফেইসবুক গ্রপ আমাকে লাইভে গান গাওয়ার  আমন্ত্রণ জানায়!বেশ কিছু নিউজ চ্যানেলেও ইতি পূর্বে ইন্টারভিউ দিয়েছিলাম। বর্তমানে RTV তে একটি প্রতিযোগীতা চলছে "RTV young Star" নামে প্রতিযোগীতাটিতে আমি ১২০০০এর বেশি প্রতিযোগীর মধ্যে সেরা ১৫০ জনের মধ্যে অবস্থান করেছিলাম। তবে আমার অপরাধ ছিলো একটাই আমার বয়স ২২ বছরের চেয়ে কয়েক মাস বেশী! যার জন্য বিচারকগণ আমাকে পরবর্তী রাউন্ডে যাবার অনুমতি দেয়নি। তবে আমি বিশ্বাস করি দুঃখের পরেই সুখ আসে। আমি আমার ইউটিউব চ্যানেল (Ariyan Shanto Official) এবং ফেইজবুক পেইজে(Ariyan Shanto) কিছুদিন পরপর গান আপলোড করা শুরু করে দিয়েছিলাম, দশর্কের ভলোবাসার পরিমাণটা দিনদিন যেই পরিমাণে বেড়ে যাচ্ছে মনে হয় আমার ভালোবাসার মানুষদের সামনে দাড়িয়ে গান শুনানোর দিনটা আর বেশি দূরে নয়!

শাফিন / শাফিন