ঢাকা শনিবার, ৮ অক্টোবর, ২০২২

প্রগ্রেসিভ লাইফের দূর্নীতি তদন্তে এবার মাঠে বিএসইসি


নিজস্ব প্রতিবেদক photo নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২-৯-২০২২ দুপুর ১:২৯

প্রগ্রেসিভ লাইফের দূর্নীতি তদন্তে এবার মাঠে নেমেছে পুঁজিবাজার এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসা নানাবিধ অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনায় ভরপুর প্রগ্রেসিভ লাইফ ইনসিওরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের দূর্নীতি ইতোমধ্যে অর্থখাতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। 

প্রতিষ্ঠানের  বর্তমান চেয়ারম্যান এবং ম্যানেজমেন্ট কর্মকর্তাদের যোগসাজসে বিগত দুই বছর যাবৎ কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) বন্ধ রেখে বিভিন্ন প্রকারের দুর্নীতি, প্রতারণা, অর্থ-আত্নসাৎ এর মাধ্যমে যে সকল অনিয়ম চলছে সেই সকল বিষয়ে খতিয়ে দেখতেই শুরু হচ্ছে এ তদন্ত। পুঁজিবাজার এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের আস্থা ধরে রাখার লক্ষ্যে  নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)’র তদন্ত টীম কাজ করবে বলে জানা গেছে।  পুঁজিবাজারের সাধারণ বিনিয়োগকারী এবং অন্যান্য ধারক গ্রাহকদের উত্থাপিত অভিযোগের ভিত্তিতে বিষয়গুলি পরীক্ষা করতে কমিশন বিগত ০৪, ০৭ এবং ১৩ই সেপ্টেম্বর, ২০২২ইং তারিখ (স্মারক নং বিএসইসি/ইএন্ডআই/পিএলআইসিএল/২০২২/০২, বিএসইসি/ইএন্ডআই/২০২২/০২/১১২ ও বিএসইসি/ ইএন্ডআই পিএলআইসিএল/২০২২/০৮) কমিশন কর্মকর্তা মোঃ সাফিউল আজম, নির্বাহী পরিচালক এবং বিনয় দাস, সহকারী পরিচালক কর্তৃক স্বাক্ষরিত পত্রে তিন সদস্য বিশিষ্ট্য একটি তদন্ত টীম গঠন করেন।

 চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের অভিমত যে, পুঁজিবাজার এবং সাধারণ বিনিযোগীকারীদের বৃহত্তর স্বার্থে প্রগ্রেসিভ লাইফ ইনসিওরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের উপর একটি তদন্ত পরিচালনা করতে এই তদন্ত নির্দেশনা জারি করা হয় এবং চিঠি জারির পাঁচ (০৫) দিনের মধ্যে নিম্নলিখিত নথিগুলি কোম্পানির কর্মকর্তাদেরকে সরবরাহ করতে বলা হয়েছে। কমিশন কর্তৃক গঠিত তদন্ত টীমের কর্মকর্তা মহোদয়গণ হচেছন ০১।মোঃ দেলোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত পরিচলক (এমএসআই), বিএসইসি এবং আহবায়ক, ০২।মোঃ সিরাজুল ইসলাম, ডেপুটি পরিচালক (এসআরএমআইসি), বিএসইসি এবং সদস্য,০৩।মোঃ মওদুদ মোমেন, ডেপুটি পরিচালক (সিএফডি), বিএসইসি এবং সদস্য সচিব। কমিশন কর্তৃক তদন্ত পরিচালনা করতে প্রগ্রেসিভ লাইফ এর নিকট চাহিত নথিগুলি নিম্নে ধারাবাহিক ভাবে উল্লেখ করা হলো; ০১। বিগত ১০ (দশ) বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতির অনুলিপি (২০১১ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত) ০২। স্মারকলিপি এবং কোম্পানির নিবন্ধনের অনুলিপি ০৩। ২০১১ থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত পরিচালকদের বিবরণের কপি  ০৪। গৃহীত ঋণ এবং অগ্রীমের বছরভিত্তিক বিবৃতি (নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের গ্রাহকদের নাম, পরিমাণ এবং ব্যাংক স্টেটমেন্ট) ০৫। নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের বিনিয়োগের বছর ভিত্তিক বিবৃতি এবং তার উপর ব্যাংক স্টেটমেন্ট ; ০৬। নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের বিশদ বিবরণ এবং তার উপর ব্যাংক বিবৃতিতে লাইফ রিভিনিউ এ্যাকাউন্টের বছরভিত্তিক বিবৃতি; পাতা- ১/৩ ০৭। নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের ব্যবস্থাপনা ব্যয় এবং তার উপর ব্যাংক স্টেটমেন্টের বছরভিত্তিক   নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের পেটি ক্যাশ সম্পর্তিক নথি এবং তার উপর ব্যাংক স্টেটমেন্টের বছরভিত্তিক। নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের জন্য তহবিলের মূল্যায়ন (লাইফ ফান্ড) সম্পর্কিত নথির বছরভিত্তিক  নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের জরুরী অবস্থা এবং বিধান এবং সংশ্লিষ্ট নথিগুলির বছরভিত্তিক  নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের জন্য মোট দাবি এবং পরিমাণ এবং এর সাথে সম্পর্কিত নথির বছরভিত্তিক পলিসি হোল্ডারদের দ্বারা করা মোট দাবির বছরভিত্তিক বিবৃতি এবং বিগত ১০ (দশ) বছরের জন্য অবৈতনিক দাবি এবং তার সাথে সম্পর্কিত নথি যেমন নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হয়েছে; বছরভিত্তিক বিবৃতি ভূমি এবং ভূমি উন্নয়নে বিনিয়োগ (আলাদাভাবে দেখানো হবে), ব্যাংক স্টেটমেন্ট, গত ১০ (দশ) বছরের জন্য অন্যান্য সম্পর্কিত নথি যেমন নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হয়েছে। এই বিষয়ে আপনাকে নিবন্ধিত জমির দলিল, মিউটেশন এবং ভাড়ার রসিদ প্রদান করতে হবে; ১৪। নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের জন্য উদ্ভিদ এবং সরঞ্জামগুলিতে বিনিয়োগের বছরভিত্তিক বিবৃতি, ব্যাংক
স্টেটমেন্ট, অন্যান্য সম্পর্কিত নথি। এই বিষয়ে আপনাকে বিল অফ এন্ট্রি,কমার্শিয়াল ইনভয়েস, প্যাকিং লিস্ট, বিল অফ লেডিং, এলসি সমূহ প্রদান করতে হবে। ১৫। নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হিসাবে বিগত ১০ (দশ) বছরের জন্য সংশ্লিষ্ট পক্ষের লেনদেন, ব্যাংক স্টেটমেন্ট, এবং অন্যান্য সম্পর্কিত নথির বছরভিত্তিক বিবৃতি; ১৬। নাম, পিতা ও মাতার নাম, পত্নীর নাম, পুত্র (গণ),কন্যা(গণ), ঠিকানা (বর্তমান এবং স্থায়ী), টেলিফোন এবং সেল ফোন নম্বর, স্পনসর, পরিচালক, স্বতন্ত্র পরিচালক এবং জীবন বীমা ব্যতীত তাদের ব্যবসায়িক সংস্থা নিরীক্ষিত আর্থিক হিসাবে দেখানো গত ১০ (দশ) বছরের বিবৃতি; ১৭। নাম, পিতা ও মাতার নাম, পত্নীর নাম, পুত্র(গণ), কন্যা(গণ), ঠিকানা
(বর্তমান এবং স্থায়ী), ব্যবস্থাপনা পরিচালকের টেলিফোন এবং সেল ফোন নম্বর,সিইও, সিএফও কোম্পানি সচিব, অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা সংবিধিবদ্ধ নিরীক্ষা প্রধান গত ১০ (দশ) বছরের জন্য যেমন নিরীক্ষিত আর্থিক বিবৃতিতে দেখানো হয়েছে; ১৮। নাম, পিতা ও মাতার নাম, পত্নীর নাম, পুত্র(গণ), কন্যা(গণ), ঠিকানা (বর্তমান এবং স্থায়ী), বিধিবদ্ধ অডিট ফার্মগুলি এবং তাদের অংশীদারদের গত ১০
(দশ) বছরের জন্য টেলিফোন এবং সেল ফোন নম্বর যেমন দেখানো হয়েছে নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণীর  পাতা- ২/৩১৯। বিগত ৫ (পাঁচ) বছরের স্বতন্ত্র পরিচালকদের বিবরণ (নাম, ঠিকানা, পেশা, অভিজ্ঞতা, সেল ফোন নম্বর);২০। বিগত ৫ (পাঁচ) বছরের জন্য কর্পোরেট গভর্নেন্সের উপর কমপ্লায়েন্স সার্টিফিকেট;২১। বিগত ১০ (দশ) বছরের এফডিআর এর কপি; ২২। সুদের হার, মেয়াদ, ব্যাংকের নাম এবং গত ১০ (দশ) বছরের একই সম্পর্কিত ব্যাংক স্টেটমেন্ট সহ বছরভিত্তিক এফডিআর এর  উল্লিখিত নথিপত্র গুলি কোম্পানির সিইও/এমডি দ্বারা প্রমাণীকৃত হতে হবে এবং সংগঠিত পদ্ধতিতে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্চ কমিশন (বিএসইসি) এর নিকট দাখিল করতে হবে মর্মে কমিশন জানিয়েছেন। এখন বলা যায় যে, সাধারণ বিনিয়োগকারীগণ যখন বিভিন্ন নিয়ন্ত্রণ সংস্থার কাছে অভিযোগ করে সঠিক বিচার চেয়ে না পেয়ে হতাশ তখন কমিশন কর্তৃক এই তদন্তকে তারা ইতিবাচক বলে মনে করছেন এবং এইবার হয়তোবা প্রগ্রেসিভ লাইফ এর পর্দার অন্তরালে নৈপথ্যে থাকা কালো বিড়ালরা ধরা খাবেন।

এমএসএম / এমএসএম