ঢাকা বৃহষ্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২২

নোবেল পাওয়া কে এই সুভান্তে প্যাবো?


সকালের সময় ডেস্ক photo সকালের সময় ডেস্ক
প্রকাশিত: ৪-১০-২০২২ দুপুর ১:৫০

বিলুপ্ত হোমিনিন এবং মানব বিবর্তনের জিনোম সম্পর্কিত আবিষ্কারগুলির জন্য এবছর চিকিৎসাবিজ্ঞানে নোবেল পুরস্কার পেয়েছেন সুইডেনের সুভান্তে প্যাবো। সোমবার (৩ অক্টোবর) নোবেল প্রাইজ কমিটি তার নাম ঘোষণা করেন। প্যাবো ১৯৫৫ সালের ২০ এপ্রিল সুইডেনের স্টোকহোমে জন্মগ্রহণ করেন। একই ক্যাটাগরিতে ১৯৮২ সালে তার বাবা বায়োকেমিস্ট সুনে বার্গস্ট্রোমও নোবেল পুরস্কার লাভ করেন।

পাবোর গবেষণার মূল অর্জন হলো, বিলুপ্ত মানুষ ও আধুনিক মানুষের মধ্যে যোগসূত্র প্রকাশ করার জন্য একটি সম্পূর্ণ নিয়ান্ডারথাল জিনোম সিকোয়েন্স। তার এই গবেষণার মাধ্যমে আগের অজানা একটি মানব প্রজাতির অস্তিত্বের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সামনে এনেছেন, যা ডেনিসোভানস নামে পরিচিত।

সুভান্তে প্যাবো ১৯৮৬ সালে উপসালা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি লাভ করেন। এরপর তিনি জুরিখ বিশ্ববিদ্যালয় ও পরে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বার্কলেতে পোস্টডক্টরাল সম্পন্ন করেন। ১৯৯০ সালে তিনি মিউনিখ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনায় নিয়োজিত হন।

১৯৯৯ সালে ‘বিবর্তনীয় নৃবিজ্ঞান’ এর জন্য প্যাবো ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক ইনস্টিটিউট, লিপজিগ প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে তিনি সেখানেই কর্মরত আছেন। এছাড়া ২০২০ সাল থেকে পাবো জাপানের ওকিনাওয়া ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে একজন সহযোগী অধ্যাপক হিসেবেও কর্মরত রয়েছেন।

প্যাবো প্যালিওজেনেটিক্সের প্রতিষ্ঠাতাদের একজন হিসেবে পরিচিত। প্যালিওজেনেটিক্স হলো- একটি শৃঙ্খলা যা প্রাথমিক মানুষ এবং অন্যান্য প্রাচীন জনসংখ্যা অধ্যয়নের জন্য জেনেটিক্সের পদ্ধতি ব্যবহার করে।

১৯৯২ সালে প্যাবো জার্মান গবেষণায় সর্বোচ্চ সম্মান ডয়েচ ফরসচুংসগেমেইনশ্যাফ্টের গটফ্রিড উইলহেম লিবনিজ পুরস্কার পান। ২০০০ সালে রয়্যাল সুইডিশ একাডেমি অফ সায়েন্সেসের সদস্য নির্বাচিত হন এবং ২০০৫ মেডিসিনের জন্য মর্যাদাপূর্ণ লুই-জেন্টেট পুরস্কার পান তিনি। ২০০৮ সালে প্যাবোকে বিজ্ঞান ও শিল্পের জন্য অর্ডার পোর লে মেরিটের সদস্যদের সাথে যুক্ত করা হয়েছিল। একই বছরে তিনি আমেরিকান একাডেমি অফ অ্যাচিভমেন্টের গোল্ডেন প্লেট পুরস্কার পান। ২০০৯ সালের অক্টোবরে ফাউন্ডেশন ফর দ্য ফিউচার ঘোষণা করেছিল দুই হাজার চারশ বছর বয়সী একটি মমি দিয়ে ১৯৮৪ সালে শুরু হওয়া প্রাচীন ডিএনএ বিচ্ছিন্ন এবং সিকোয়েন্সিংয়ের কাজের জন্য ২০০৯ সালে প্যাবোকে কিসলার পুরস্কার দেয়া হয়।

২০১০ সালের জুনে ফেডারেশন অফ ইউরোপিয়ান বায়োকেমিক্যাল সোসাইটিজ (এফইবিএস)বায়োকেমিস্ট্রি এবং মলিকুলার বায়োলজিতে অসামান্য কৃতিত্বের জন্য প্যাবোকে থিওডর বুচার পদক প্রদান করে। ২০১৩ সালে বিবর্তনীয় জেনেটিক্সে গ্রাউন্ড ব্রেকিং গবেষণার জন্য পান জেনেটিক্সে গ্রুবার পুরস্কার।

২০১৫ সালের জুন মাসে তিনি গালওয়েতে ডিএসসি (অনারিস কসা) ডিগ্রি লাভ করেন। ২০১৬ সালে রয়্যাল সোসাইটির একজন বিদেশী সদস্য নির্বাচিত হন। এবং ২০১৭ সালে ড্যান ডেভিড পুরস্কার, ২০১৮ সালে বৈজ্ঞানিক গবেষণা বিভাগে প্রিন্সেস অফ আস্তুরিয়াস পুরস্কার, ২০২০ সালে জাপান পুরস্কার, ২০২১ সালে ম্যাসরি পুরস্কার এবং ২০২২ সালে চিকিৎসায় নোবেল পুরষ্কারে ভূষিত হন সুভান্তে প্যাবো।

২০১৪ সালে প্যাবো তার নিজ বই নিয়ান্ডারথাল ম্যান: ইন সার্চ অফ লস্ট জিনোমে বলেছিলেন যে তিনি প্রকাশ্যে উভকামী। প্যাবো উল্লেখ করেন, তিনি ধরে নিয়েছিলেন যে তিনি সমকামী ছিলেন যতক্ষণ না তিনি একজন আমেরিকান প্রাইমাটোলজিস্ট এবং জেনেটিস্ট লিন্ডা ভিজিল্যান্টের সাথে দেখা করেন। তারা অনেক গবেষণাপত্রে সহ-লেখক হিসেবে কাজ করেছেন। পরে ২০০৮ সালে প্যাবো এবং ভিজিল্যান্ট বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এবং তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

তথ্যসূত্র: উইকিপিডিয়া

প্রীতি / প্রীতি

চিয়াং জে মিনের স্মরণে শোকসভা সি চিন পিং

সাধারণ মানুষের রক্তদানের অসাধারণ গল্প 

করোনায় বিশ্বে ২৪ ঘন্টায় বেড়েছে মৃত্যু ও আক্রান্ত

থাইল্যান্ডে বোমা বিস্ফোরণে নিহত ৩

করোনার বিধিনিষেধ আরও শিথিল করছে চীন

কলম্বিয়ায় ভূমিধসে ৩ জনের মৃত্যু, আটকা পড়েছেন ২০ জন

টুইটারে বিজ্ঞাপন প্রদান শুরু করছে অ্যাপল-অ্যামাজন

গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে ভোট দিলেন মোদি

নতুন করে বৈশ্বিক জ্বালানি তেলের বাজারে অস্থিরতা

করোনায় বিশ্বে ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ও আক্রান্ত কমেছে

ইউনেস্কোতে চায়না ডকিউমেন্টারি ফেস্টিভাল

করোনায় চীনে মারা যেতে পারে ২০ লাখ মানুষ

শূন্য কোভিড নীতি থেকে সরে আসার ইঙ্গিত চীনের