বালাগঞ্জে স্কুল ছাত্রীর লাশ পেকুয়া ব্রিজের পাশে

news paper

বালাগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২৩-৩-২০২৩ দুপুর ৪:২৭

26Views

সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলার বাণীগাঁও এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীর লাশ পেকুয়া ব্রিজের আশপাশ থেকে উদ্ধার করেছে বালাগঞ্জ থানা পুলিশ। গত বুধবার (২২ মার্চ) এ ঘটনাটি ঘটে। বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) নিহতের ভাই ইসকন্দর মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা করে বালাগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেছে। মামলা নং-০৬।
 
জানা যায়, বালাগঞ্জ থানা পুলিশ পেকুয়া ব্রিজের আশপাশ থেকে উদ্ধারকৃত মরদেহটি বোয়ালজুর ইউনিয়নের বাণীগাঁও এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী। এবং বালাগঞ্জ উপজেলার বোয়ালজুর ইউনিয়নের নুরপুর (হেকিম আলী) গ্রামের আইন উল্যার মেয়ে সুমাইয়া বেগম। এক ভাই ও দশ বোনের মধ্যে সবার ছোট ছিল সুমাইয়া। নিহত স্কুল ছাত্রী গত বুধবার (২২ মার্চ) সকাল ৮টায় প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার উদ্দ্যেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়। স্কুলে বার্ষিক মিলাদের দাওয়াত থাকায় সুমাইয়ার মা স্কুলে গিয়ে মেয়েকে পাননি, বাড়িও ফিরেনি। এদিকে বিদ্যালয়ের বার্ষিক মিলাদ শেষে বাড়ি যাওয়ার পথে নিহতের সহপাঠীরা একটি লাশ দেখতে পান পেকুয়া ব্রিজের পাশে নদী পাশে ঝোঁপঝাড়ে এবং স্কুল ব্যাগ রাস্তার পাশে। ব্যাগে থাকা বইয়ে পরিচয় মিলে সুমাইয়ার। সহপাঠীরা স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও নিহতের পরিবারকে বিষয়টি অবহিত করলে সাড়া পরে এলাকাজুড়ে। 
 
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, বুধবার সকালের দিকে বৃষ্টি হওয়ায় এলাকার লোকজন চলাচল না করায় ওই এলাকা নির্জন ছিল। ওই সময় হয়তো এ ঘটনাটি ঘটে। তারা আরো জানান, পেকুয়া ব্রিজের উপর বখাটেদের আনাগোনা থাকে। এখানে ছিনতাই সহ অনেক ঘটনা পূর্বে ঘটেছে। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থার দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
 
বালাগঞ্জ থানার এসআই ও মামলার আইও নুরুজ্জামান জানান, আশংকা করা যাচ্ছে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে। ধর্ষণের বিষয়ে বলেন, সুরতহাল রিপোর্টে বুঝা যায়নি তবে ময়নাতদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে। নিহতের ভাই ইসকন্দর মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা করে বালাগঞ্জ থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলা নং-০৬। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনতে এবং ঘটনাটির সত্যতা উদঘাটন করতে বালাগঞ্জ থানা পুলিশের একটি দল কাজ করে যাচ্ছে। 
 
বালাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ রমাপ্রসাদ চক্রবর্তী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এটি অবশ্যই একটি হত্যাকান্ড। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনার সঙ্গে কে বা কারা জড়িত তা বের করার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন