ঢাকা শুক্রবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

মাগুরায় ফাঁদ পেতে অশ্লীল ভিডিও ধারণ ও মুক্তিপণ দাবি,আটক ৩


রাশিদুল ইসলাম, শ্রীপুর photo রাশিদুল ইসলাম, শ্রীপুর
প্রকাশিত: ২৯-৫-২০২৩ রাত ৯:০
মাগুরায় নারী দিয়ে ফাঁদ পেতে অশ্লীল ভিডিও ধারন ও জিম্মি করে মুক্তিপণ দাবীর অভিযোগে দুই সহযোগী নারীসহ চক্রের মুলহোতা গ্রেফতার করেছে মাগুরা জেলা পুলিশ। রবিবার ২৮মে ২০২৩ইং তারিখে মাগুরা পুলিশের কাছে অভিযোগ আসে মাগুরার ডেফুলিয়া গ্রামের শামসু বিশ্বাস(৩৬) নামের এক ব্যক্তিকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা নতুন বাজার এলাকা থেকে অপহরণ করে নিয়ে আটক করে । ভিকটিমের মোবাইল দিয়ে ফোন করে ১ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করছে, টাকা না দিলে ভিকটিমকে নারী দিয়ে ফাসিয়ে অশ্লীল ভিডিও বানিয়ে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবে এবং ভিকটিমকে মেরে গুম করে দেবার হুমকি প্রদান করছে।
 
এরুপ অভিযোগের প্রেক্ষিতে মাগুরা পুলিশ সুপারের নির্দেশনায় ভিকটিম উদ্ধারসহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনে সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল,সিসিআইসি টিমকে নির্দেশ প্রদান করলে সাইবার টিম ও ডিবি পুলিশের একটি চৌকশ টিম এটা নিয়ে কাজ শুরু করে।ইতিমধ্যে অভিযোগকারির সাথে উদ্ধার অভিযানের সদস্যরা যোগাযোগ রক্ষা করতে থাকে। অভিযোগকারীর কাছ থেকে জানা যায় দুস্কৃতিকারীরা মুক্তিপণ গ্রহণের জন্য একটা বিকাশ মোবাইল নাম্বার প্রদান করেছে। উক্ত বিকাশ নাম্বারে আধা ঘন্টার মধ্যে মুক্তিপনের টাকা প্রদান না করলে ভিকটিমকে মেরে ফেলবে এবং ভিকটিমের খারাপ ভিডিও করে ছেড়ে দেবে বলে ভয় দেখাচ্ছে।পুলিশের উদ্ধারকারি টিম আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় ও স্থানীয় গোয়েন্দা তথ্যে ভিত্তিতে মাগুরার নিজ নান্দুয়ালি এলাকায় অভিযান করে চক্রের মুল হোতা সহ সহযোগি দুই নারীকে আটক করে এবং ভিকটিম শামসু বিশ্বাস(৩৬) কে উদ্ধার করে।
 
গ্রেফতারকৃত আসামিরা দীর্ঘদিন ধরে এইভাবে প্রতারণা করে আসছিল বলে তাদের জিজ্ঞসাবাদে জানা যায়। এই চক্রের মূলহোতা নিজনান্দুয়ালী এলাকার মৃত সালেক শেখের ছেলে শাহিনুর শেখ(৪২)আর অপর দুইজন কুদ্দুসের স্ত্রী জুলেখা (৩৫) ও জাকির ওরফে অপুর স্ত্রী নদী(৩৫) তার সহযোগি। চক্রের অন্যান্য সদস্যদের সহায়তায় নদীর মোবাইল নাম্বার থেকে টার্গেট ব্যক্তিদেরকে ফোন করে সম্পর্ক গড়ে তোলে, এক পর্যায়ে একসাথে দেখা করার কথা বলে টার্গেট ব্যক্তিকে মাগুরায় নতুন বাজার এলাকায় ডেকে এনে কৌশলে নিজ নান্দুয়ালি এলাকায় জুলেখার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে আগে থেকেই মুল হোতা শাহিন ওৎপেতে থাকে, ভিকটিমকে রুমে নিয়েই তাকে উলঙ্গ করে চক্রের নারী সদস্যরা তাদের সাথে আপত্তিকর অবস্থা তৈরি করে আর শাহিন তার নিজ মোবাইল দিয়ে তা ভিডিও করে। তারপর ভিকটিমের ফোন থেকেই তার বন্ধু/আত্মীয়দের কাছে কল করে মুক্তিপণ দাবি করে আর মারতে থাকে। আসামী শাহিনের মোবাইল ডিভাইস থেকে এরকম কয়েকজনের জোরপূর্বক অশ্লীল ভিডিও ধারনের প্রমান মিলেছে। এই বিষয়ে আরো তদন্ত চলমান। গ্রেফতারকৃত ১নং আসামী শাহিনের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালে অস্ত্রসহ অপহরণ করে ২ টি খুনের মামলাসহ একাধিক মাদক ও চুরির মামলাসহ সর্বোমোট ০৬টি মামলা রয়েছে।
 
এই সংক্রান্তে মাগুরা থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। সোমবার বিকাল তিনটায় মাগুরা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তথ্য জানানো হয়।

এমএসএম / এমএসএম

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন ডাবলু সরকার

কলমাকান্দায় অটোরিকশার ধাক্কায় শিশু নিহত

শরণখোলায় বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণের শিকার

পীরগঞ্জে বহিরাগত ২ মহিলা গ্রেফতার

পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের ইউরেনিয়ামের প্রথম চালান রূপপুরে

বিজয়নগরে মাটির ঘর ধসে ভাই-বোনের মৃত্যু, আহত ৩

সলঙ্গায় হেরোইনসহ মাদক কারবারি আটক

চট্টগ্রামে মিলেছে ১২২৩ বছর আগে বিলুপ্ত পণ্ডিত বিহার বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্তিত্ব

দুই মণ ধান বিক্রি করে এক কেজি ইলিশ মাছ পায় না:শাহ আব্দুল্লাহ আল বাকী

মনোহরগঞ্জে প্রবাসীর দোকান ঘর ভাংচুর জায়গা দখল

গোপালপুরে অটোরিকশা কেড়ে নিল হেয়ার গাঁথুনী শিল্প উদ্যােক্তা বরকতের প্রাণ

নাঙ্গলকোটে কৃতি শিক্ষার্থী সংবধর্না ২০২৩ অনুষ্ঠিত

ইবিথানায় জাঁকজমকপূর্ণ ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত