ছাত্রকল্যাণ তহবিল থেকে মেধাবী ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের বৃত্তি চালু করলো এলজিইউডি বিভাগ

news paper

এস এম মোজতাহীদ প্লাবন, নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত: ১৩-৯-২০২৩ দুপুর ১:৭

53Views

ময়মনসিংহে অবস্থিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভাগীয় অভ্যন্তরীণ বৃত্তির প্রচলন শুরু করলো স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগ (এলজিইউডি)।

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে অবস্থিত ভার্চুয়াল কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত বিভাগীয় বৃত্তি ও এসপিএসএস সনদ প্রদান অনুষ্ঠানে ৯জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদানের মাধ্যমে এই দৃষ্টান্ত স্থাপন করে বিভাগটি।

বিভাগের ছাত্রকল্যাণ তহবিল হতে মেধাবৃত্তি হিসেবে ৪জনকে ও শিক্ষা সহায়তা বৃত্তি হিসেবে ৫জনকে  ২০০০টাকা করে অভ্যন্তরীণ বৃত্তি প্রদান করে বিভাগটি। অনেকেই মনে করছেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগটি যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো সেটি বাকি ২৩টি বিভাগকেও অনুপ্রাণিত করবে।

মেধাবৃত্তি পাওয়া স্নাতক ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মো. ফারহান হোসাইন বলেন, আমি খুবই আনন্দিত এবং আপ্লূত এটা ভেবে যে বিভাগের প্রথম অভ্যন্তরীণ মেধাবৃত্তি পাওয়ার সৌভাগ্য আমার হলো।আর এজন্য আমি অসংখ্য ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করতে চাই আমার শ্রদ্ধেয় শিক্ষকমণ্ডলীর প্রতি যাদের দিকনির্দেশনা এবং পরামর্শক্রমে আমি আজকের বৃত্তিটি পাওয়ার উপযুক্ত হয়েছি। বিশেষভাবে ধন্যবাদ দিতে চাই আমার একজন প্রিয় ব্যক্তিত্ব, যার অনেক কথা এবং গুনাবলী আমার জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিনিয়ত অনুসরণ করি, আমাদের বিভাগীয় প্রধান শ্রদ্ধেয় রাকিবুল ইসলাম স্যারের প্রতি এই মহৎ উদ্যোগটি গ্রহন করার জন্য। আমি বিশ্বাস করি এরকম উদ্যোগ শিক্ষার্থীদের মধ্যে পড়াশোনার গতি বৃদ্ধি করবে।পরিশেষে সকলের কাছে আমার পরবর্তী জীবনের জন্য দোয়াপ্রার্থী।

শিক্ষা সহায়তা বৃত্তি পাওয়া স্নাতক ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মো. আরিফুল হাসান বলেন, এটা খুবই কার্যকরী উদ্যোগ। এর ফলে অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীরা স্বাভাবিক পড়াশোনা কার্যক্রম চালিয়ে নিতে পারবে এবং ভালো ফলাফল করতে আগ্রহী হবে। আমি বিভাগের এই ধরনের উদ্যোগের জন্য শিক্ষকদেরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

স্নাতকোত্তর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ফারুক মিয়া বলেন, মেধাবীদের এগিয়ে নেওয়া ও অনুপ্রেরণা দিতে স্হানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের এই মহৎ উদ্যোগ নিশ্চয়ই নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে রোল মডেল হিসেবে কাজ করবে। উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য অর্থনৈতিক সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়ে সব সময় মেধাবী শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্হানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগ। এমন একটি চমৎকার উদ্যোগ গ্রহণের জন্য বিভাগের সম্মানিত  চেয়ারম্যান ও সকল শিক্ষকবৃন্দের প্রতি অকৃত্রিম শ্রদ্ধা।

স্নাতকোত্তর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী রুনা আক্তার বলেন, আজকে একটি উক্তি স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে যেখানে চার্লস কুরাল্ট, বলেছিলেন ”ভাল শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে কীভাবে সেরাটা বের করে আনতে হয় তা জানেন।“ আজকের এই আয়োজন তারই বহিঃপ্রকাশ।  আমাদের বিভাগের প্রতিটি শিক্ষক শুধুমাত্র কীভাবে স্হানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন করতে হবে এই শিক্ষা প্রদান করেন না, একই সাথে প্রতিটি শিক্ষার্থী কিভাবে আর্থিক বা মানসিকভাবে উন্নয়ন করতে হয় তার দিকেও নজর রাখে। এই বিভাগের শিক্ষার্থী হতে পারে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি।

বিভাগটির বিভাগীয় প্রধান সহকারী অধ্যাপক মো. রাকিবুল ইসলাম বলেন, শিক্ষার্থীদের নিজস্ব অর্থায়নে গঠিত ছাত্রকল্যাণ তহবিল থেকে এই বৃত্তি প্রদান করা হচ্ছে। মেধাবী ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীরা যাতে অনুপ্রাণিত হয় সেলক্ষ্যে এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আজ মেধাবৃত্তির পাশাপাশি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সাদিক হাসান শুভর তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন বর্ষের ৬০জন শিক্ষার্থীকে এসপিএসএস সনদ প্রদান করা হলো। এই সনদ তাদের ভবিষ্যৎ জীবনে অনেক কাজে লাগবে। আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর স্যারের দিকনির্দেশনায় শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়ন মোটোর সারথি হয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। বিভাগীয় অভ্যন্তরীণ বৃত্তি প্রদানের মাধ্যমে আজ আমরা দৃষ্টান্ত স্থাপন করলাম। আশা করি স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের সকল কার্যক্রম অন্যদেরও অনুপ্রাণিত করবে।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর বলেন, স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগকে অভিনন্দন। তারা নিজস্ব তহবিল গঠন করে নিজেদের মেধাবী ও অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি প্রদান করছে যেটি অনেক প্রশংসনীয়। আজকে অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের বৃত্তি দেওয়া হলো। আগামীতে এরাই আবার অন্য কাউকে বৃত্তি দেবে। আমরা শক্তিশালী অ্যালামনাই এসোসিয়েশন গড়ে তুলবো। যাদের গড়া ফান্ডে অনেকে উপকৃত হবে।

উল্লেখ্য, স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অধ্যাপক আফরোজা ইসলাম লিপি সঞ্চালনায় ও বিভাগীয় প্রধান মো. রাকিবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উদ্ভোধক ও প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৌমিত্র শেখর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. আতাউর রহমান ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. নজরুল ইসলাম। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন লোক প্রশাসন ও সরকার পরিচালনা বিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আজিজুর রহমান, স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তানিয়া আফরিন তন্বী, সহকারী অধ্যাপক সাদিক হাসান শুভসহ বিভাগের বিভিন্ন শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীবৃন্দ।


আরও পড়ুন